স্বাগতম মাতৃত্বের ভুবনে ( পর্ব  ২-নতুন মায়ের নতুন মায়ের ওজন নিয়ন্ত্রণ)

স্বাগতম মাতৃত্বের ভুবনে ( পর্ব  ২-নতুন মায়ের নতুন মায়ের ওজন নিয়ন্ত্রণ)

বুকের দুধ খাওয়ানোর অজুহাতে যেমন বেশি খাওয়া ঠিক নয়, তেমনি ফিগার নষ্টের ভয়ে কম খাওয়াও ঠিক নয়। বাচ্চা ও মায়ের জন্য উভয়ের জন্য যতটা প্রয়োজন ততটাই খেতে হবে

♦পর্যাপ্ত ঘুমাতে হবে। নইলে শরীরে  কর্টিসলের পরিমান বেড়ে গিয়ে ক্লান্তি আসে। তখন একে সামলাতে গিয়ে ক্ষুধা বেড়ে যায়। তখন খেয়ে ওজন বাড়ানো লাগে। যদিও প্রসবের পর মা চাইলেও ঘুমাতে পারেনা, তাই বাচ্চা ঘুমালে মা কেও ঘুমাতে হবে। অন্য কাজে মন দেয়া চলবেনা।

♦মানসিক চাপকে না বলুন। কারন এটি রক্তে চিনির পরিমান বাড়িয়ে ওজন বৃদ্ধি করে।

♦পরিমিত ও সঠিক ব্যায়াম করুন। অতিরিক্ত করে উল্টো ফল পাবেন। শুধু শক্তি ই হারাবেন, ওজন কমবেনা।

♦প্রসবের ৬ মাস পর থেকেই প্লান করুন কীভাবে শুরু করবেন। তবে ক্রাশ ডায়েট অবশ্যি করবেন না।

♦বেশি করে একবারে খাবেন না। কয়েকবারে সময় নিয়ে অল্প করে খান। ফল,জুস,সুপ ইত্যাদি বেশি খান, বেশি করে পানি খান।

♦ব্যায়াম শুরু করুন, যখন দেখবেন মেদ কমা শুরু হয়েছে তখন থেকে। পেটের পেশী শক্ত করার কসরত গুলো করতে পারেন। তবে অবশ্যই অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিবেন। হাঁটতে হবে নিয়মিত।

♦এরপরেও ওজন না কমলে ভয় পাবেন না। সময়েই আপনার আগের ফিগার ফিরে আসবে। শুধু নিজেকে সঠিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে জানুন।

মানসিক ভাবে শক্ত থাকুন। এভাবেই নিজেকে শারীরিক ও মানসিকভাবে সুন্দর রাখুন।

একটি শিশু জন্মের সাথে জন্ম হয় একজন মায়ের। আর তাই বাচ্চার সাথে নতুন মায়ের যত্ন অনেক গুরুতপুর্ন। বিস্তারিত জানতে পরবর্তী আর্টিকেল পড়ুন(পর্ব ৩-নতুন মায়ের যত্ন)।

লেখক : তামান্না তাহসিন আহমেদ
খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান বিভাগ।

প্রথম আর্টিকেলটি পড়ুন নিচের লিংক থেকে

স্বাগতম মাতৃত্বের ভুবনে ( পর্ব  ১-নতুন মায়ের খাবার)

এবং তৃতীয় আর্টিকেলটি পড়ুন নিচের লিংক থেকে।

স্বাগতম মাতৃত্বের ভুবনে(পর্ব ৩-নতুন মায়ের যত্ন)

1,964 total views, 2 views today

Any opinion ..?

Posted by pushtibarta

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *