তারুণ্যের বন্ধুঃ গাজর

“দিন দিন বুড়িয়ে যাচ্ছি রে,বয়সটা বেড়েই চলছে…” প্রত্যেকটা মানুষের জীবনের অন্যতম একটি হতাশার বিষয় এই বয়স বেড়ে যাওয়া,তারুণ্য হারিয়ে যাওয়া। আমরা বিভিন্নভাবেই প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাই আমাদের বয়স বৃদ্ধির ধারাটাকে স্থবির করতে।পরিমিত খাদ্য গ্রহণ,নিয়মিত বিভিন্ন শারীরিক ব্যায়াম কিংবা বাজারে প্রচলিত বিভিন্ন ঔষধ কিংবা নির্দিষ্ট খাদ্য গ্রহণ করে থাকে অনেকেই।তবে অনেক সময় অনেক ভুল পদ্ধতি ব্যবহার করি যা আমাদের বিভিন্ন শারীরিক এবং মানসিক বিভিন্ন জটিলতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।সাধারণত আর্টিফিশিয়াল খাদ্য বা ঔষধ আমাদের দেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর এবং অতিরিক্ত গ্রহণে বিভিন্ন জটিল রোগে আমরা আক্রান্ত হয়ে থাকি।অন্যদিকে, প্রাকৃতিক খাদ্য গ্রহণ যেমন সাশ্রয়ী তেমন উপকারী ও বটে।

বার্ধক্যের সাথে আমাদের এ লড়াইয়ে আমাদের অন্যতম এক বন্ধু গাজর। ভিটামিন সমৃদ্ধ এই সবজিটিতে ক্যারোটিনয়েডস, ফ্ল্যাভোনয়েডস, পলিয়েসিথিলিনস, আলফা ও বিটা ক্যারোটিন, খনিজ উপাদান রয়েছে।এগুলি সমস্তই পুষ্টিকর এবং স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।এটি শুধুমাত্র শরীরের ভালো করে তাই নয়,এর পাশাপাশি এটি আমাদের জন্য এন্টি এজিং উপাদান হিসেবেও কাজ করে। এতে যে বিটা ক্যারোটিন আছে তা আমাদের শরীরের ভেতরে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ। গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা থেকে জানা গিয়েছে যে,গাজরে থাকা ক্যারোটিনয়েড (যা কিনা এর কমলা রঙের জন্য দায়ী) একটি এন্টি এজিং পদার্থ। গাজর আপনার তারুণ্যকে অধিক সময় ধরে রাখতে সাহায্য করে।শুধু তাই নয় গাজর খাবার ফলে চেহারাও হয়ে উঠে আরেকটু আকর্ষণীয়।

 

গাজরের উপকারিতাঃ

১. দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে গাজর অন্যতম সহায়ক।

২. গাজর আমাদের দেহকে ক্যান্সার প্রতিরোধে সক্ষম করে তোলে।

৩.এর বিটা ক্যারোটিন একটি অন্যতম এন্টি এজিং উপাদান হিসেবে কাজ করে।

৪.ত্বককে সুন্দর এবং আকর্ষণীয় করতে গাজর সাহায্য করে। এর ক্যারোটিনয়েড ত্বকের পোড়াভাব কমায়।

৫. এটি হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

৬. ত্বকের সুস্থতায় এটিকে ফেশিয়ালের উপাদান হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।

৭.গাজরে ক্যারোটিনয়েড হৃদপিণ্ডের বিভিন্ন অসুখের ঔষধ হিসেবে কাজ করে।

৮. কাঁচা গাজরের রস লিভার থেকে অতিরিক্ত চর্বি সরিয়ে ফেলতে সাহায্য করে।

৯.কাঁচা গাজর দাঁত ও মুখ গহ্বর পরিষ্কার রাখে এবং দাঁতকে মজবুত রাখে।

১০. স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে গাজর সাহায্য করে।

 

গাজরের পুষ্টিমানের পরিমানঃ

উপাদান গাজর গাজরের পাতা
ক্যারোটিন ৬২৮০ মাইক্রো গ্রাম ১১০ মাইক্রো গ্রাম
কার্বোহাইড্রেট ৬ গ্রাম ৭ গ্রাম
প্রোটিন ০.৯ গ্রাম ৫.১ গ্রাম
ভিটামিন-বি ১৬.৩৬৩ মিলি গ্রাম ০.০৬ মিলি গ্রাম
ভিটামিন-সি ১.৪ মিলি গ্রাম ১০ মিলি গ্রাম
আয়রন ০.৪ গ্রাম ২ মিলি গ্রাম
ক্যালসিয়াম ২৬ মিলি গ্রাম ২ মিলি গ্রাম
খাদ্য শক্তি ৩৪ কিলো ক্যালরি ৭৭ কিলো ক্যালরি

গাজর সহজলব্ধ একটি উপকারী সবজি।

খুব সহজেই হাতের কাছে আমরা তা পেতে পারি।তাই নিজের স্বাস্থ্য রক্ষার পাশাপাশি নিজের তারুণ্যকে অধিক সময় ধরে রাখতে আমাদের নিয়মিত উপযুক্ত খাবার গ্রহণের পাশাপাশি খাদ্য তালিকায় এই উপকারী সবজিটিকে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত।

লেখক

হাবীবা ফারহানা

খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান বিভাগ

সম্পাদক

সৃজনী মণ্ডল

খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান বিভাগ

1,581 total views, 2 views today

Any opinion ..?

Posted by pushtibarta

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *