কফি পানের উপকারিতা

India's Coffee Board registers 30,000 farmers on blockchain marketplace -  Ledger Insights - enterprise blockchain

বর্তমানে কফি একটি জনপ্রিয় পানীয়। আমাদের দেশে বরাবরই চা পানের প্রচলন থাকলেও ইদানিং কফি পান ব্যাপক জনপ্রীয়তা লাভ করেছে। কফি যেমন খেতে সুস্বাদু তেমনি এর বৈচিএ্য এবং তৈরি করার সহজ লভ্যতা এর জনপ্রিয়তার মূল কারন। কেউ কেউ তাদের দিনটি শুরু করতে এই পানিয়কে আবশ্যক করে নেয়, কফি ছাড়া যেন ঘুমের আড়মোড়াটাই দূর হয় না। মজাদার পানীয় টা যে শুধু মজাদার তা নয় এর রয়েছে হরেক রকমের উপকারিতা।

১.মস্তিস্ক সচল রাখতে কফির ভুমিকা : ক্যাফেইন ও গ্লুকোজ একসাথে আমাদের ব্রেনের কিছু অংশকে
সক্রিয় করে তোলে,মস্তিষ্কের কেন্দ্রীয় সয়ংক্রিয় অঞ্চল প্রভাবিত করে এবং এর মাধ্যমে এড্রেনালিন
হরমোনের ক্রিয়া বাড়ে যা দেহে রক্তচাপ, হৃদপিণ্ডেরস্পন্দন, গ্লুকোজ এর পরিমান ইত্যাদি বাড়িয়ে দেয়।
মস্তিস্কের কিছু অংশে উত্তেজনা প্রদান করে বিধায় এটি মস্তিস্কের সক্ষমতা বাড়াতে সহায়ক।
২.প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি : কফিতে ফেনলিক কম্পাউন্ড থাকার কারনে এটির মাধ্যমে বিভিন্ন রোগের
ঝুকি হ্রাস পায়। দৈনিক ২-৩ কাপ কফি পানে লিভার ক্যানসারের ঝুঁকি কমে।টাইপ ২ ডায়বেটিস হওয়ার
আশংকা ২৫% কমে নিয়মিত কফি পানে। এড্রেনালিন হরমোন দেহের সক্ষমতা বাড়ায়। ক্যাফেইন পারকিন্সন ডিজিসের জন্য প্রতিরোধ গড়ে তোলে।হার্ট ডিজিস কমে।
৩. ক্লান্তি দূর করে: আমাদের দেহের ক্লান্তি দূর করে কফি কর্ম উদ্দীপনা নিয়ে আসে।ডোপামিন ও
সেরাটোনিন হরমোন উদ্দিপ্ত করার মাধ্যমে আমাদের ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। কাজের প্রতি মনোযোগ বাড়ে ।
৪.ওজন কমানো : বিপাক ক্রিয়া বাড়ানোর মাধ্যমে ওজন কমাতে সাহায্য করে। দেহে হরমন লেপটিন এর
পরিমান ক্যাফেইনের মাধ্যমে বেড়ে যায় এতে দেহে লিপিড হ্রাস পায়। লেপটিন লিপিডকে জমতে দেয় না।
৫. বার্ধক্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হ্রাস : কফি তে বিভিন্ন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা চামড়ার টিস্যুকে গঠন করে সুস্থ রাখে।
৬.ভিটামিনের উৎস : বিভিন্ন ভিটামিন যেমন রিবফ্লাভিন, নিয়াসিনসহ পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে যা
দেহের পুষ্টি চাহিদা মিটিয়ে থাকে।
৭. অবসাদ কমাতে সহায়তা করে : যেহেতু কফিতে থাকা ক্যাফেইন ব্রেনের সেনট্রাল নার্ভাস সিস্টেম কে
সক্রিয় করে তোলে তাই এটির হরমোনাল প্রভাব মানসিক ভাবে আমাদের অবসাদ দূর করে। রিসার্চে দেখা
গেছে যে নিয়মিত কফি পান করা লোকের আত্মহত্যা করার হার ৫০% কম।

কফি পান একটি উপভোগ্য এবং উপকারি অভ্যাস হলেও দিনে ৪-৫ কাপের বেশী পান করলে নানা ধরনের
পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। অনিদ্রা, উচ্চ রক্তচাপ, অস্থিরতা, মাথাব্যথা, এসিডিটি, গ্যাস প্রবলেম সহ
নানা ধরনের সমস্যা হতে পারে। কোন কিছুই খুব বেশী হলে তা হীতে বিপরীত হয়। দৈনিক ১-২ কাপ কফি পান শ্রেয়। তবে খেয়াল রাখতে হবে এই কফি যেন খালি পেটে না পান করা হয়।

লেখকঃ
দুর্দানা মল্লিক

সম্পাদনায়ঃ
আছিয়া খাতুন মিম

767 total views, 2 views today

Any opinion ..?

Posted by pushtibarta

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *