মাসালা রাইতা

উপকরনঃ-
টক দই- দেড় কাপ,
জিরা গুড়ো- ১/২ চা চামচ,
কালো গোল মরিচ গুড়ো- ১/২ চা চামচ,
শুকনো মরিচ গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
পুদিনা পাতা- ১ টেবিল চামচ,
চিনি- ২ চা চামচ,
বিট লবন- ১ চা চামচ,
লেবুর রস- ২ চা চামচ,
গাজর কুচি- ১/২ কাপ
কাঁচা লঙ্কা কুচি- ১ চা চামচ
শশা কুচি- ১/২কাপ,
টমেটো কুচি- ১/২কাপ,
ধনে পাতা কুচি- ১ টেবিল চামচ,
লবন স্বাদ মত !!!
ফোড়নের জন্য- সাদা তেল, সরিষা, সাদা জিরা

পদ্ধতি –
[ ১] একটা বাটিতে দই নিয়ে ভালো করে ফেটে নিতে হবে। এবার জিরা গুঁড়ো, শুকনো মরিচ গুঁড়ো, গোল মরিচ গুঁড়ো, পুদিনা পাতা পেস্ট, চিনি, বিট লবন, লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে ফেটে নিতে হবে।
[২ ] এখন তাতে শশা কুচি, টমেটো কুচি, গাজর কুচি, ধনে পাতা কুচি, কাঁচা মরিচ কুচি মিশিয়ে দিতে হবে।
[ ৩] এবার একটা প্যানে এক চামচ মত সাদা তেল গরম করে নিতে হবে।
[ ৪] এর মধ্যে এক চিমটি সরষে ও এক চিমটি সাদা জিরা ফোঁড়ন দিয়ে দিতে হবে।

[৫ ] এখন রাইতার উপর এই ফোঁড়নটাকে ঢেলে দিতে হবে।
[ ] এটাকে এখন মিশিয়ে নিয়ে খেতে পারেন বা ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে খেতে পারেন।

উপকারিতাঃ
রায়তা পেট ও শরীর ঠান্ডা করে। হজমে সহায়ক। ওজন কমাতে সহায়তা করে।

দইয়ে আছে প্রোবায়োটিক। দই ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ডি এর ভালো উৎস।

শসা, টমেটো, গাজর ক্যান্সার প্রতিরোধ করে, দৃষ্টিশক্তি ও ত্বক ভালো রাখে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ভিটামিন এ ও ভিটামিন সি এর চাহিদা পূরণে সহায়ক।

জিরা বদহজম দূর করে, ব্লাড সুগার কমায় এবং কোলেস্টেরল দূর করে।

কালোগোলমরিচ কফনাশক।

সরিষা ঠান্ডা ও সাইনাসের সমস্যা দূর করে।

সর্বোপরি রাইতা নিউট্রিয়েন্টসে ভরপুর সালাদ যা দেহ মনকে সতেজ করে দিবে এই রোজাতে — ভীষণ স্বাস্থ্য সম্মত এই সালাদ খেতে সত্যি অনেক মজার !

লেখিকাঃ স্বর্ণালী দাশ(বিজয়া)
খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান বিভাগ

474 total views, 2 views today

Any opinion ..?

Posted by pushtibarta

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *